ঢাকা ০৮:০৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

৮ মাস আগে মারা যাওয়া ছাত্রদল নেতাও আসামি

মিরপুর (ঢাকা) প্রতিনিধি

বিএনপির পদযাত্রাকে কেন্দ্র করে রাজধানীর মিরপুর সরকারি বাঙলা কলেজে সংঘর্ষের ঘটনায় মৃত শ্রমিক দল নেতা আ. জব্বারকে আসামি করার পর একই মামলায় ৮ মাস আগে মারা যাওয়া এক ছাত্রদল নেতাকেও আসামি করা হয়েছে।

ওই ছাত্রদল নেতার নাম শফিকুল ইসলাম সুমন। তিনি সরকারি বাঙলা কলেজ শাখা ছাত্রদলের বর্তমান কমিটির সহসভাপতি ছিলেন। ২০২২ সালের ৯ নভেম্বর ব্লাড ক্যানসারে মারা যান তিনি। তার গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালী জেলার মির্জাগঞ্জ উপজেলায়।

গত ১৮ জুলাই বিএনপির পদযাত্রাকে কেন্দ্র করে মিরপুর বাঙলা কলেজের সামনে বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের ধাওয়া-পালটাধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ১০ জন আহত হন। এ ঘটনায় বুধবার রাজধানীর দারুস সালাম থানায় ২টি মামলা হয়। এতে বিএনপির ২২৯ জন নেতাকর্মীর নামোলে­খসহ অজ্ঞাত আরও ৮০০ থেকে ১০০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। একটি মামলায় ছাত্রদল নেতা শফিকুলকে ৭৩নং আসামি করা হয়েছে। এ মামলার বাদী মো. মহিদুর রহমান। অন্যটির বাদী রুবেল হোসেন।

শফিকুলকে যে মামলার আসামি করা হয়েছে সেটিতে বিএনপির ১০৯ জন নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ৪০০ থেকে ৫০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। মামলায় তার পরিচয় লেখা রয়েছে সহসভাপতি, সরকারি বাঙলা কলেজ শাখা ছাত্রদল।

শফিকুলের মৃত্যুতে ২০২২ সালের ১১ নভেম্বর শোক প্রকাশ করে পৃথক বিবৃতি দেয় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদ ও সরকারি বাঙলা কলেজ শাখা ছাত্রদল।

দারুস সালাম থানার ওসি আমিনুল বাশার এই প্রতিবেদককে বলেন, আপনি যে শফিকুলের কথা বলছেন মামলার আসামি সেই শফিকুল নাও হতে পারে। কারণ মামলায় আসামির দলীয় পদবি দেওয়া থাকলেও ঠিকানা ও পিতার নাম দেওয়া নেই। শফিকুল হয়তো আরও আগের কমিটির অন্য কেউ হবে।

সরকারি বাঙলা কলেজ শাখা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ও ঢাকা মহানগর উত্তর যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. আইয়ুব আলী বলেন, শফিকুল ইসলাম সুমন কলেজ শাখা ছাত্রদলের রানিং কমিটিতে থাকা অবস্থাতেই ক্যানসারে মারা গেছেন। আমি ২০০০ সালে কলেজ শাখা ছাত্রদলের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির ১নং সদস্য হিসেবে রাজনীতি শুরু করি। আমি দীর্ঘদিন বাঙলা কলেজে ছাত্রদল করেছি। শফিকুল ইসলাম সুমন নামে কলেজ শাখা ছাত্রদলের সহসভাপতি একজনকেই পেয়েছি। যাকে মামলার আসামি করা হয়েছে। সে কিছুদিন আগে ক্যানসারে মারা গেছে।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

Dainik Renaissance

আমাদের ওয়েসাইটে আপনাকে স্বাগতম। আপনাদের আশে পাশের সকল সংবাদ দিয়ে আমাদের সহযোগীতা করুন
আপডেট সময় ০২:৩৯:২৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুলাই ২০২৩
৮৮ বার পড়া হয়েছে

৮ মাস আগে মারা যাওয়া ছাত্রদল নেতাও আসামি

আপডেট সময় ০২:৩৯:২৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুলাই ২০২৩

বিএনপির পদযাত্রাকে কেন্দ্র করে রাজধানীর মিরপুর সরকারি বাঙলা কলেজে সংঘর্ষের ঘটনায় মৃত শ্রমিক দল নেতা আ. জব্বারকে আসামি করার পর একই মামলায় ৮ মাস আগে মারা যাওয়া এক ছাত্রদল নেতাকেও আসামি করা হয়েছে।

ওই ছাত্রদল নেতার নাম শফিকুল ইসলাম সুমন। তিনি সরকারি বাঙলা কলেজ শাখা ছাত্রদলের বর্তমান কমিটির সহসভাপতি ছিলেন। ২০২২ সালের ৯ নভেম্বর ব্লাড ক্যানসারে মারা যান তিনি। তার গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালী জেলার মির্জাগঞ্জ উপজেলায়।

গত ১৮ জুলাই বিএনপির পদযাত্রাকে কেন্দ্র করে মিরপুর বাঙলা কলেজের সামনে বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের ধাওয়া-পালটাধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ১০ জন আহত হন। এ ঘটনায় বুধবার রাজধানীর দারুস সালাম থানায় ২টি মামলা হয়। এতে বিএনপির ২২৯ জন নেতাকর্মীর নামোলে­খসহ অজ্ঞাত আরও ৮০০ থেকে ১০০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। একটি মামলায় ছাত্রদল নেতা শফিকুলকে ৭৩নং আসামি করা হয়েছে। এ মামলার বাদী মো. মহিদুর রহমান। অন্যটির বাদী রুবেল হোসেন।

শফিকুলকে যে মামলার আসামি করা হয়েছে সেটিতে বিএনপির ১০৯ জন নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ৪০০ থেকে ৫০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। মামলায় তার পরিচয় লেখা রয়েছে সহসভাপতি, সরকারি বাঙলা কলেজ শাখা ছাত্রদল।

শফিকুলের মৃত্যুতে ২০২২ সালের ১১ নভেম্বর শোক প্রকাশ করে পৃথক বিবৃতি দেয় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদ ও সরকারি বাঙলা কলেজ শাখা ছাত্রদল।

দারুস সালাম থানার ওসি আমিনুল বাশার এই প্রতিবেদককে বলেন, আপনি যে শফিকুলের কথা বলছেন মামলার আসামি সেই শফিকুল নাও হতে পারে। কারণ মামলায় আসামির দলীয় পদবি দেওয়া থাকলেও ঠিকানা ও পিতার নাম দেওয়া নেই। শফিকুল হয়তো আরও আগের কমিটির অন্য কেউ হবে।

সরকারি বাঙলা কলেজ শাখা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ও ঢাকা মহানগর উত্তর যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. আইয়ুব আলী বলেন, শফিকুল ইসলাম সুমন কলেজ শাখা ছাত্রদলের রানিং কমিটিতে থাকা অবস্থাতেই ক্যানসারে মারা গেছেন। আমি ২০০০ সালে কলেজ শাখা ছাত্রদলের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির ১নং সদস্য হিসেবে রাজনীতি শুরু করি। আমি দীর্ঘদিন বাঙলা কলেজে ছাত্রদল করেছি। শফিকুল ইসলাম সুমন নামে কলেজ শাখা ছাত্রদলের সহসভাপতি একজনকেই পেয়েছি। যাকে মামলার আসামি করা হয়েছে। সে কিছুদিন আগে ক্যানসারে মারা গেছে।