ঢাকা ০৩:৪৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

সোনালীর বহিষ্কৃত সিইও রাশেদ আমানের বিরুদ্ধে ফের গ্রেফতারি পরোয়ানা

স্টাফ রিপোর্টার

সোনালী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের বহিষ্কৃত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মীর রাশেদ বিন আমানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

রামপুরা থানায় করা মামলায় বৃহস্পতিবার তার বিরুদ্ধে এ পরোয়ানা জারি করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. আলী হায়দারের আদালত।

আদালত সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

আদালত সূত্র জানায়, অর্থ আত্মসাতের মামলায় গত ৫ মার্চ আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন রাশেদ বিন আমান। পরে আদালত জামিন না মঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠান। এরপর তিনি জামিনে মুক্ত হন। ওই জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় ফের তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।

গত ১১ জানুয়ারি রামপুরা থানায় সোনালী লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের এক্সিকিউটিভ মোস্তফা গোলাম এমরান বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। এতে মীর রাশেদ বিন আমানসহ কোম্পানির সাবেক ৭ কর্মকর্তার নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করা হয়।

মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে প্রতারণামূলক বিশ্বাসভঙ্গ করে অর্থ আত্মসাৎসহ হুমকি প্রদানের অভিযোগ আনা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

Dainik Renaissance

আমাদের ওয়েসাইটে আপনাকে স্বাগতম। আপনাদের আশে পাশের সকল সংবাদ দিয়ে আমাদের সহযোগীতা করুন
আপডেট সময় ০২:৪২:০৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৪
৮৪ বার পড়া হয়েছে

সোনালীর বহিষ্কৃত সিইও রাশেদ আমানের বিরুদ্ধে ফের গ্রেফতারি পরোয়ানা

আপডেট সময় ০২:৪২:০৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৪

সোনালী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের বহিষ্কৃত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মীর রাশেদ বিন আমানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

রামপুরা থানায় করা মামলায় বৃহস্পতিবার তার বিরুদ্ধে এ পরোয়ানা জারি করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. আলী হায়দারের আদালত।

আদালত সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

আদালত সূত্র জানায়, অর্থ আত্মসাতের মামলায় গত ৫ মার্চ আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন রাশেদ বিন আমান। পরে আদালত জামিন না মঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠান। এরপর তিনি জামিনে মুক্ত হন। ওই জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় ফের তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।

গত ১১ জানুয়ারি রামপুরা থানায় সোনালী লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের এক্সিকিউটিভ মোস্তফা গোলাম এমরান বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। এতে মীর রাশেদ বিন আমানসহ কোম্পানির সাবেক ৭ কর্মকর্তার নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করা হয়।

মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে প্রতারণামূলক বিশ্বাসভঙ্গ করে অর্থ আত্মসাৎসহ হুমকি প্রদানের অভিযোগ আনা হয়।