ঢাকা ০২:২৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

শাহবাগে হামলা-ভাঙচুর

সাঈদীর ছেলেসহ যে চারজনের নামে মামলা

অনলাইন ডেস্ক

সাঈদীর ছেলে মাসুদ সাঈদী, হামিদুর রহমান আজাদ ও ছাত্র শিবিরের সাবেক সভাপতি ড. শফিকুল ইসলাম
মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আমৃত্যু কারাদণ্ডপ্রাপ্ত দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর মরদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্স ঘিরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল (বিএসএমএমইউ) বিশ্ববিদ্যালয় ও শাহবাগ মোড়ে হামলা-ভাঙচুরের ঘটনায় জামায়াত-শিবিরের পাঁচ হাজার নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

মামলায় চারজনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এরমধ্যে দুই নম্বর আসামি করা হয়েছে সাঈদীর ছেলে মাসুদ সাঈদীকে। মামলার বাকি তিন আসামি হলেন হামিদুর রহমান আজাদ, ছাত্র শিবিরের সাবেক সভাপতি ড. শফিকুল ইসলাম এবং জামায়াত নেতা মো. সাইফুল ইসলাম।

এর আগে বুধবার (১৬ আগস্ট) রাতে শাহবাগ থানায় দায়ের করা এ মামলায় সরকারি কাজে বাধা, মারধর, গাড়িতে আগুন দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রমনা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, বেআইনিভাবে যোগসাজশে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে লাঠিসোটা, ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে পুলিশের কর্তব্য কাজে বাধা প্রদানের পর আক্রমণ করে সাধারণ ও গুরুতর জখম এবং অগ্নিসংযোগ করার অপরাধ করা হয়েছে। এতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১৪-১৫ লাখ টাকা।

মঙ্গলবার সকালে ডিএমপি কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক বলেন, দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর মরদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্স ঘিরে সোমবার (১৪ আগস্ট) রাতে তাণ্ডব চালিয়েছে জামায়াত-শিবির।

ওইদিন রাতে সাঈদীর মৃত্যুর পর জানাজা ঢাকায় পড়ানোর দাবিতে শাহবাগে বিক্ষোভ করেন জামায়াতে ইসলামী ও ছাত্র শিবিরের নেতাকর্মীরা। বিএসএমএমইউয়ের ভেতরে ও সামনের সড়কে রাতভর বিক্ষোভ করেন তারা। সড়কে একটি লাশবাহী ফ্রিজিং গাড়িও ভাঙচুর করেছেন তারা। পুড়িয়ে দেওয়া হয় দুটি মোটরসাইকেলও। পরে মঙ্গলবার ভোরে পুলিশ অবস্থান নিয়ে কাঁদানে গ্যাস ও সাউন্ড গ্রেনেড ছুড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে।

এর আগে সোমবার রাত ৮টা ৪০ মিনিটে বিএসএমএমইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

Dainik Renaissance

আমাদের ওয়েসাইটে আপনাকে স্বাগতম। আপনাদের আশে পাশের সকল সংবাদ দিয়ে আমাদের সহযোগীতা করুন
আপডেট সময় ০৬:৫৬:৩৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৬ অগাস্ট ২০২৩
৪০ বার পড়া হয়েছে

শাহবাগে হামলা-ভাঙচুর

সাঈদীর ছেলেসহ যে চারজনের নামে মামলা

আপডেট সময় ০৬:৫৬:৩৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৬ অগাস্ট ২০২৩

সাঈদীর ছেলে মাসুদ সাঈদী, হামিদুর রহমান আজাদ ও ছাত্র শিবিরের সাবেক সভাপতি ড. শফিকুল ইসলাম
মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আমৃত্যু কারাদণ্ডপ্রাপ্ত দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর মরদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্স ঘিরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল (বিএসএমএমইউ) বিশ্ববিদ্যালয় ও শাহবাগ মোড়ে হামলা-ভাঙচুরের ঘটনায় জামায়াত-শিবিরের পাঁচ হাজার নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

মামলায় চারজনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এরমধ্যে দুই নম্বর আসামি করা হয়েছে সাঈদীর ছেলে মাসুদ সাঈদীকে। মামলার বাকি তিন আসামি হলেন হামিদুর রহমান আজাদ, ছাত্র শিবিরের সাবেক সভাপতি ড. শফিকুল ইসলাম এবং জামায়াত নেতা মো. সাইফুল ইসলাম।

এর আগে বুধবার (১৬ আগস্ট) রাতে শাহবাগ থানায় দায়ের করা এ মামলায় সরকারি কাজে বাধা, মারধর, গাড়িতে আগুন দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রমনা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, বেআইনিভাবে যোগসাজশে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে লাঠিসোটা, ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে পুলিশের কর্তব্য কাজে বাধা প্রদানের পর আক্রমণ করে সাধারণ ও গুরুতর জখম এবং অগ্নিসংযোগ করার অপরাধ করা হয়েছে। এতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১৪-১৫ লাখ টাকা।

মঙ্গলবার সকালে ডিএমপি কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক বলেন, দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর মরদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্স ঘিরে সোমবার (১৪ আগস্ট) রাতে তাণ্ডব চালিয়েছে জামায়াত-শিবির।

ওইদিন রাতে সাঈদীর মৃত্যুর পর জানাজা ঢাকায় পড়ানোর দাবিতে শাহবাগে বিক্ষোভ করেন জামায়াতে ইসলামী ও ছাত্র শিবিরের নেতাকর্মীরা। বিএসএমএমইউয়ের ভেতরে ও সামনের সড়কে রাতভর বিক্ষোভ করেন তারা। সড়কে একটি লাশবাহী ফ্রিজিং গাড়িও ভাঙচুর করেছেন তারা। পুড়িয়ে দেওয়া হয় দুটি মোটরসাইকেলও। পরে মঙ্গলবার ভোরে পুলিশ অবস্থান নিয়ে কাঁদানে গ্যাস ও সাউন্ড গ্রেনেড ছুড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে।

এর আগে সোমবার রাত ৮টা ৪০ মিনিটে বিএসএমএমইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী।