ঢাকা ০৮:৩৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

বিএনপির  শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন খালেদা জিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্বাস্থ্যের অবনতি না হলে এবারও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া স্বজনদের সঙ্গে গুলশানের ভাড়াবাসা ফিরোজায় ঈদ করবেন। আর ঈদের দিন রাতে তিনি সীমিত পরিসরে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। দলের বেশিরভাগ নেতা এবার ঢাকায় ঈদ করবেন।

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলনকেন্দ্রে ২০১৭ সালের ২৬ জুন সর্বশেষ রাজনীতিবিদ, কূটনীতিক ও সাংবাদিকদের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেছিলেন খালেদা জিয়া। পরে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজা হলে ২০১৮ সালে ৮ ফেব্রুয়ারি তিনি কারাবন্দী হন। এর পর চারটি ঈদ কারাগারে, একটি বিএসএমএমইউয়ে, ২০২০ সালের ২৫ মার্চ সরকারের নির্বাহী আদেশে সাজা স্থগিত করে শর্তসাপেক্ষে মুক্তি দেওয়ার পর ৬টি ফিরোজায় এবং এভারকেয়ার হাসপাতালে একটি ঈদ কাটে খালেদা জিয়ার। তার চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ড বর্তমানে বাসায় রেখে খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা দিচ্ছে।

স্বাস্থ্যের অবনতি না ঘটলে এবারও তিনি ফিরোজায় অন্য বছরের মতো ভাই শামীম এস্কান্দার ও প্রয়াত সাঈদ এস্কান্দারের পরিবারের সঙ্গে ঈদ করবেন খালেদা জিয়া। ঈদের দিন যুক্তরাজ্যে অবস্থানরত বড় ছেলে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও ছোট ছেলে প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী-সন্তানদের সঙ্গে ভার্চুয়ালি ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন তিনি।

২০০৮ সাল থেকে যুক্তরাজ্যে অবস্থান করা দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান পরিবারের সদস্যদের নিয়ে এবারও সেখানে ঈদ করবেন। সেখানে তিনি নেতাকর্মীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।

বিএনপি নেতারা কে কোথায় ঈদ করবেন

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ঢাকায় ঈদ করবেন। ঈদের নামাজ আদায়ের পর বেলা ১১টায় বিএনপির সিনিয়র নেতারা রাজধানীর শেরেবাংলানগরে জিয়াউর রহমানের (বীরউত্তম) কবর জিয়ারত করবেন। দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান, বেগম সেলিমা রহমান ঢাকায় ঈদ করবেন। তবে স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান নরসিংদীতে ও আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী চট্টগ্রামে ঈদ করবেন। ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু এবং সালাউদ্দিন আহমেদ বিদেশে রয়েছেন। সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী ঢাকায় ঈদ করবেন।

এ ছাড়া দলটির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু, অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেনসহ অনেকেই ঢাকায় থাকবেন। আর ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান, বরকতল্লাহ বুলু নোয়াখালীতে, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল ঢাকায় এবং সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু নাটোরে, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স ঢাকায় ও অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ মুন্সীগঞ্জে ঈদ করবেন।

কেন্দ্রীয় নেতা মোস্তাফিজুর রহমান জামালপুরের মেলান্দহে, আমিরুল ইসলাম খান আলীম সিরাজগঞ্জে এবং আবু নাসের মোহাম্মদ রহমতুল্লাহ ও প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন ঢাকায় ঈদ করবেন। কেন্দ্রীয় নেতা তাবিথ আউয়াল বিদেশে রয়েছেন। ঢাকা মহানগর উত্তরের আহ্বায়ক অধ্যাপক ডা. ফরহাদ হালিম ডোনার ও সদস্য সচিব আমিনুল হক, দক্ষিণের আহ্বায়ক আব্দুস সালাম ও সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনু ঢাকায় ঈদ করবেন।

খায়রুল কবির খোকন, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, আসলাম চৌধুরী, আজিজুল বারী হেলাল, হাবিবুল ইসলাম হাবিব, লুৎফুজ্জামান বাবরসহ একডজনেরও বেশি বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা এবার কারাগারে ঈদ করছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

Dainik Renaissance

আমাদের ওয়েসাইটে আপনাকে স্বাগতম। আপনাদের আশে পাশের সকল সংবাদ দিয়ে আমাদের সহযোগীতা করুন
আপডেট সময় ০১:০২:১৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ এপ্রিল ২০২৪
৮২ বার পড়া হয়েছে

বিএনপির  শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন খালেদা জিয়া

আপডেট সময় ০১:০২:১৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ এপ্রিল ২০২৪

স্বাস্থ্যের অবনতি না হলে এবারও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া স্বজনদের সঙ্গে গুলশানের ভাড়াবাসা ফিরোজায় ঈদ করবেন। আর ঈদের দিন রাতে তিনি সীমিত পরিসরে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। দলের বেশিরভাগ নেতা এবার ঢাকায় ঈদ করবেন।

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলনকেন্দ্রে ২০১৭ সালের ২৬ জুন সর্বশেষ রাজনীতিবিদ, কূটনীতিক ও সাংবাদিকদের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেছিলেন খালেদা জিয়া। পরে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজা হলে ২০১৮ সালে ৮ ফেব্রুয়ারি তিনি কারাবন্দী হন। এর পর চারটি ঈদ কারাগারে, একটি বিএসএমএমইউয়ে, ২০২০ সালের ২৫ মার্চ সরকারের নির্বাহী আদেশে সাজা স্থগিত করে শর্তসাপেক্ষে মুক্তি দেওয়ার পর ৬টি ফিরোজায় এবং এভারকেয়ার হাসপাতালে একটি ঈদ কাটে খালেদা জিয়ার। তার চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ড বর্তমানে বাসায় রেখে খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা দিচ্ছে।

স্বাস্থ্যের অবনতি না ঘটলে এবারও তিনি ফিরোজায় অন্য বছরের মতো ভাই শামীম এস্কান্দার ও প্রয়াত সাঈদ এস্কান্দারের পরিবারের সঙ্গে ঈদ করবেন খালেদা জিয়া। ঈদের দিন যুক্তরাজ্যে অবস্থানরত বড় ছেলে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও ছোট ছেলে প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী-সন্তানদের সঙ্গে ভার্চুয়ালি ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন তিনি।

২০০৮ সাল থেকে যুক্তরাজ্যে অবস্থান করা দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান পরিবারের সদস্যদের নিয়ে এবারও সেখানে ঈদ করবেন। সেখানে তিনি নেতাকর্মীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।

বিএনপি নেতারা কে কোথায় ঈদ করবেন

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ঢাকায় ঈদ করবেন। ঈদের নামাজ আদায়ের পর বেলা ১১টায় বিএনপির সিনিয়র নেতারা রাজধানীর শেরেবাংলানগরে জিয়াউর রহমানের (বীরউত্তম) কবর জিয়ারত করবেন। দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান, বেগম সেলিমা রহমান ঢাকায় ঈদ করবেন। তবে স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান নরসিংদীতে ও আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী চট্টগ্রামে ঈদ করবেন। ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু এবং সালাউদ্দিন আহমেদ বিদেশে রয়েছেন। সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী ঢাকায় ঈদ করবেন।

এ ছাড়া দলটির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু, অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেনসহ অনেকেই ঢাকায় থাকবেন। আর ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান, বরকতল্লাহ বুলু নোয়াখালীতে, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল ঢাকায় এবং সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু নাটোরে, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স ঢাকায় ও অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ মুন্সীগঞ্জে ঈদ করবেন।

কেন্দ্রীয় নেতা মোস্তাফিজুর রহমান জামালপুরের মেলান্দহে, আমিরুল ইসলাম খান আলীম সিরাজগঞ্জে এবং আবু নাসের মোহাম্মদ রহমতুল্লাহ ও প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন ঢাকায় ঈদ করবেন। কেন্দ্রীয় নেতা তাবিথ আউয়াল বিদেশে রয়েছেন। ঢাকা মহানগর উত্তরের আহ্বায়ক অধ্যাপক ডা. ফরহাদ হালিম ডোনার ও সদস্য সচিব আমিনুল হক, দক্ষিণের আহ্বায়ক আব্দুস সালাম ও সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনু ঢাকায় ঈদ করবেন।

খায়রুল কবির খোকন, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, আসলাম চৌধুরী, আজিজুল বারী হেলাল, হাবিবুল ইসলাম হাবিব, লুৎফুজ্জামান বাবরসহ একডজনেরও বেশি বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা এবার কারাগারে ঈদ করছেন।