ঢাকা ০৩:০৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

তিনটি ব্যাগ নিয়ে বাসা থেকে কোনোমতে স্ত্রী-কন্যাদের নিয়ে বের হন এমরান!

নিজস্ব সংবাদ :

নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ প্রফেসর ড. মুহাম্মদ ইউনূস ইস্যুতে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল (ডিএজি) পদ থেকে বরখাস্ত হওয়া এমরান আহম্মদ ভূঁইয়া নিজের বাসা ছেড়ে সপরিবারে ঢাকায় মার্কিন দূতাবাসে অবস্থান করছেন। নিরাপত্তা চেয়ে সেখানে তিনি আশ্রয় চেয়েছেন।

শুক্রবার বিকালে পরিবারসহ তিনি দূতাবাসে যান। তার সঙ্গে রয়েছে স্ত্রী ও রয়েছে তিন কন্যাসন্তান। এ রিপোর্ট লেখার সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত এমরান দূতাবাসে রয়েছেন বলে জানিয়েছে তার ঘনিষ্ঠ সূত্রগুলো।

সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েক দিন ধরেই এমরান আহম্মদকে ফেসবুক মেসেঞ্জার ও হোয়াটসঅ্যাপে হুমকি দেওয়া হচ্ছিল। নিরাপত্তাহীনতার কারণেই তিনি মার্কিন দূতাবাসে এসে আশ্রয় চেয়েছেন। স্রেফ ৩টা ব্যাগে সামান্য কাপড় নিয়ে তিন মেয়েসহ কোনোমতে বাসা থেকে বের হতে পেরেছেন তিনি।

এর আগে বিকালে এমরান আহম্মদ  জানান, তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। তাই পরিবারসহ যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসে হাজির হয়েছেন। বন্ধের দিন হওয়ায় নিরাপত্তাকর্মীরা ভেতরে যেতে দেননি। মূল ফটকের পাশে একটি কক্ষে তাদেরকে বসতে দেওয়া হয়েছে।

শান্তিতে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিষয়ে বিবৃতি সংক্রান্ত বক্তব্য দিয়ে আলোচনায় আসেন এমরান আহম্মদ। শুক্রবার সকালে এমরান আহম্মদকে বরখাস্তের বিষয়টি জানান আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

এদিকে পরিবারকে নিয়ে এমরান নিরাপত্তা চেয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসে যাওয়ার বিষয়টি আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়। তিনি  বলেন, ‘এই জন্যই তো নাটক সাজিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে যেতে চায়, বিষয়টি আমি দেখছি।’

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

Dainik Renaissance

আমাদের ওয়েসাইটে আপনাকে স্বাগতম। আপনাদের আশে পাশের সকল সংবাদ দিয়ে আমাদের সহযোগীতা করুন
আপডেট সময় ০৮:৪৮:২৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩
৬২ বার পড়া হয়েছে

তিনটি ব্যাগ নিয়ে বাসা থেকে কোনোমতে স্ত্রী-কন্যাদের নিয়ে বের হন এমরান!

আপডেট সময় ০৮:৪৮:২৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩

নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ প্রফেসর ড. মুহাম্মদ ইউনূস ইস্যুতে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল (ডিএজি) পদ থেকে বরখাস্ত হওয়া এমরান আহম্মদ ভূঁইয়া নিজের বাসা ছেড়ে সপরিবারে ঢাকায় মার্কিন দূতাবাসে অবস্থান করছেন। নিরাপত্তা চেয়ে সেখানে তিনি আশ্রয় চেয়েছেন।

শুক্রবার বিকালে পরিবারসহ তিনি দূতাবাসে যান। তার সঙ্গে রয়েছে স্ত্রী ও রয়েছে তিন কন্যাসন্তান। এ রিপোর্ট লেখার সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত এমরান দূতাবাসে রয়েছেন বলে জানিয়েছে তার ঘনিষ্ঠ সূত্রগুলো।

সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েক দিন ধরেই এমরান আহম্মদকে ফেসবুক মেসেঞ্জার ও হোয়াটসঅ্যাপে হুমকি দেওয়া হচ্ছিল। নিরাপত্তাহীনতার কারণেই তিনি মার্কিন দূতাবাসে এসে আশ্রয় চেয়েছেন। স্রেফ ৩টা ব্যাগে সামান্য কাপড় নিয়ে তিন মেয়েসহ কোনোমতে বাসা থেকে বের হতে পেরেছেন তিনি।

এর আগে বিকালে এমরান আহম্মদ  জানান, তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। তাই পরিবারসহ যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসে হাজির হয়েছেন। বন্ধের দিন হওয়ায় নিরাপত্তাকর্মীরা ভেতরে যেতে দেননি। মূল ফটকের পাশে একটি কক্ষে তাদেরকে বসতে দেওয়া হয়েছে।

শান্তিতে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিষয়ে বিবৃতি সংক্রান্ত বক্তব্য দিয়ে আলোচনায় আসেন এমরান আহম্মদ। শুক্রবার সকালে এমরান আহম্মদকে বরখাস্তের বিষয়টি জানান আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

এদিকে পরিবারকে নিয়ে এমরান নিরাপত্তা চেয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসে যাওয়ার বিষয়টি আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়। তিনি  বলেন, ‘এই জন্যই তো নাটক সাজিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে যেতে চায়, বিষয়টি আমি দেখছি।’