ঢাকা ০৮:২৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

চৌদ্দগ্রামে চাঁদার দাবিতে গৃহবধুকে মর্মান্তিকভাবে কুপিয়ে জখম

নিজস্ব সংবাদ :

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের উজিরপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে মামলা দায়েরকে কেন্দ্র করে মোসাঃ নাজমা আক্তার(৩২) নামে এক গৃহবধুকে মর্মান্তিকভাবে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে সুয়ারখিল গ্রামের জয়নাল হাজারীর ছেলে মোঃ জামাল (৪০), বেলঘর গ্রামের মৃত দেলোয়ার হোসেনের ছেলে মোছাদ্দেক হোসেন ছোটন (৪৮) গং। এ ঘটনায় ভুক্তভোগির ভাসুর মোঃ ছলিম উদ্দিন বাদী হয়ে চৌদ্দগ্রাম থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, জায়গা সম্পত্তির বিষয়কে কেন্দ্র করে উক্ত সন্ত্রাসীরা মোঃ জামাল (৪০), মোছাদ্দেক হোসেন ছোটন (৪৮) গং চাঁদা দাবীসহ বেশ কয়েকবার মাষ্টার ইয়াছিন মিয়ার বাড়িঘরে হামলা চালিয়েছে। এ বিষয়ে বিজ্ঞ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দ্রুত বিচার আইনে একটি সি.আর – মোকদ্দমা নং- ২৯/২৩ দায়ের করা হয়। বিবাদীগন উক্ত মামলার খবর পাইয়া মামলাটি প্রত্যাহার করার জন্য বাদীর উপর চাপসৃষ্টি সহ বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি ধমকি দিয়ে আসিতে থাকে।
বিজ্ঞ আদালতে দায়েরকৃত বর্ণিত মামলায় ০৪/১০/২০২৩ খ্রিঃ তারিখ সাক্ষী শুনানীর দিন ধার্য্য থাকায় এবং উক্ত মামলায় মাষ্টার ইয়াছিন মিয়া গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষী হওয়ায় বিবাদীগন উক্ত তারিখে মাষ্টার ইয়াছিন মিয়া যাহাতে বিজ্ঞ আদালতে হাজির হতে না পারে সে লক্ষ্যে তাকে খুন জখমের সময় সুযোগ খুঁজিয়া আসিতে থাকে। এমতাবস্থায় গত ০৩/১০/২০২৩ খ্রিঃ তারিখ বিকাল অনুমান ০৪.৪৫ ঘটিকার দিকে মাষ্টার ইয়াছিন মিয়া মিয়াবাজার অবস্থানকালে তার স্ত্রী’কে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মাথায়, কানের নিচে, মুখে, চোখে গুরুতর রক্তাত্ব জখম করে। খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন তাকে মিয়াবাজারস্থ ফ্রেন্ডস প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানের কর্তব্যরত ডাক্তার রোগীর অবস্থা মূমূর্খ দেখিয়া তাহাকে দ্রুত কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলে। ডাক্তারের পরামর্শে রোগীকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার ভিকটিমের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা অবস্থা আশংকাজনক দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ প্রদান করেন। বর্তমানে
ভিকটিম ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। বর্তমানে পরিবারের সদস্যরা নিরাপত্তহীনতায় ভুগছে। তারা প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা করেছেন।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

Dainik Renaissance

আমাদের ওয়েসাইটে আপনাকে স্বাগতম। আপনাদের আশে পাশের সকল সংবাদ দিয়ে আমাদের সহযোগীতা করুন
আপডেট সময় ০৮:৫৫:১৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৭ অক্টোবর ২০২৩
১৫৩ বার পড়া হয়েছে

চৌদ্দগ্রামে চাঁদার দাবিতে গৃহবধুকে মর্মান্তিকভাবে কুপিয়ে জখম

আপডেট সময় ০৮:৫৫:১৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৭ অক্টোবর ২০২৩

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের উজিরপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে মামলা দায়েরকে কেন্দ্র করে মোসাঃ নাজমা আক্তার(৩২) নামে এক গৃহবধুকে মর্মান্তিকভাবে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে সুয়ারখিল গ্রামের জয়নাল হাজারীর ছেলে মোঃ জামাল (৪০), বেলঘর গ্রামের মৃত দেলোয়ার হোসেনের ছেলে মোছাদ্দেক হোসেন ছোটন (৪৮) গং। এ ঘটনায় ভুক্তভোগির ভাসুর মোঃ ছলিম উদ্দিন বাদী হয়ে চৌদ্দগ্রাম থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, জায়গা সম্পত্তির বিষয়কে কেন্দ্র করে উক্ত সন্ত্রাসীরা মোঃ জামাল (৪০), মোছাদ্দেক হোসেন ছোটন (৪৮) গং চাঁদা দাবীসহ বেশ কয়েকবার মাষ্টার ইয়াছিন মিয়ার বাড়িঘরে হামলা চালিয়েছে। এ বিষয়ে বিজ্ঞ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দ্রুত বিচার আইনে একটি সি.আর – মোকদ্দমা নং- ২৯/২৩ দায়ের করা হয়। বিবাদীগন উক্ত মামলার খবর পাইয়া মামলাটি প্রত্যাহার করার জন্য বাদীর উপর চাপসৃষ্টি সহ বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি ধমকি দিয়ে আসিতে থাকে।
বিজ্ঞ আদালতে দায়েরকৃত বর্ণিত মামলায় ০৪/১০/২০২৩ খ্রিঃ তারিখ সাক্ষী শুনানীর দিন ধার্য্য থাকায় এবং উক্ত মামলায় মাষ্টার ইয়াছিন মিয়া গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষী হওয়ায় বিবাদীগন উক্ত তারিখে মাষ্টার ইয়াছিন মিয়া যাহাতে বিজ্ঞ আদালতে হাজির হতে না পারে সে লক্ষ্যে তাকে খুন জখমের সময় সুযোগ খুঁজিয়া আসিতে থাকে। এমতাবস্থায় গত ০৩/১০/২০২৩ খ্রিঃ তারিখ বিকাল অনুমান ০৪.৪৫ ঘটিকার দিকে মাষ্টার ইয়াছিন মিয়া মিয়াবাজার অবস্থানকালে তার স্ত্রী’কে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মাথায়, কানের নিচে, মুখে, চোখে গুরুতর রক্তাত্ব জখম করে। খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন তাকে মিয়াবাজারস্থ ফ্রেন্ডস প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানের কর্তব্যরত ডাক্তার রোগীর অবস্থা মূমূর্খ দেখিয়া তাহাকে দ্রুত কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলে। ডাক্তারের পরামর্শে রোগীকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার ভিকটিমের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা অবস্থা আশংকাজনক দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ প্রদান করেন। বর্তমানে
ভিকটিম ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। বর্তমানে পরিবারের সদস্যরা নিরাপত্তহীনতায় ভুগছে। তারা প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা করেছেন।