ঢাকা ০৮:৫৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

আপত্তিকর অবস্থায় আটক ২ ইউপি সদস্য

জামালপুর প্রতিনিধি

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম ও নারী ইউপি সদস্য জেসমিন আক্তার শিল্পীকে ‘আপত্তিকর অবস্থায়’ দেখতে পেয়ে আটক করেছেন স্থানীয় জনতা । শনিবার (২০ এপ্রিল) দুপুর ৩ টায় উপজেলার আওনা ইউনিয়নের স্থল গ্রামের সুলাইয়ের ফার্নিচারের দোকানের পুর্বপাশে মানিকের মায়ের ঘরে এ ঘটনা ঘটে। আওনা ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম এবং ৭,৮,৯ নং ওয়ার্ডের নারী ইউপি সদস্য জেসমিন আক্তার। শনিবার সন্ধ্যা থেকে বিভিন্ন জনের আইডি থেকে ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই ব্যপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। তবে তারা নৈতিক স্থলন ঘটিয়েছে বলে দাবী করে তাদের বহিষ্কার দাবী করেছেন স্থানীয় এলাকাবাসী।

এ বিষয়ে ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম জানান, আমাকে ফাসানো হয়েছে। এগুলা সব মিথ্যা ও ষড়যন্ত্র মুলক। এ ছাড়া নারী ইউপি সদস্য জেসমিন আক্তারকে মুঠোফোনে কল দেওয়া হলে নাম্বারটি বন্ধ থাকায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

তবে আওনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বেল্লাল হোসেন জানান, তারা আগে থেকেই এভাবে চলাচল করে। আমি ঢাকা থেকে এসে ইউএনও মহোদয়কে বিষয়টি অবগত করে বিধি মোতাবেক পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সুপারিশ করব।

এ বিষয়ে সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মুশফিকুর রহমান জানান,সংবাদ পেয়েছি। সেখানে তারাকান্দি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তদন্ত স্বাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে মুঠোফোনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তারকে একাধিকবার কল দেওয়া হলে নাম্বারটি রিসিভ না করায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

Dainik Renaissance

আমাদের ওয়েসাইটে আপনাকে স্বাগতম। আপনাদের আশে পাশের সকল সংবাদ দিয়ে আমাদের সহযোগীতা করুন
আপডেট সময় ১২:৫৬:০২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪
৩৪ বার পড়া হয়েছে

আপত্তিকর অবস্থায় আটক ২ ইউপি সদস্য

আপডেট সময় ১২:৫৬:০২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম ও নারী ইউপি সদস্য জেসমিন আক্তার শিল্পীকে ‘আপত্তিকর অবস্থায়’ দেখতে পেয়ে আটক করেছেন স্থানীয় জনতা । শনিবার (২০ এপ্রিল) দুপুর ৩ টায় উপজেলার আওনা ইউনিয়নের স্থল গ্রামের সুলাইয়ের ফার্নিচারের দোকানের পুর্বপাশে মানিকের মায়ের ঘরে এ ঘটনা ঘটে। আওনা ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম এবং ৭,৮,৯ নং ওয়ার্ডের নারী ইউপি সদস্য জেসমিন আক্তার। শনিবার সন্ধ্যা থেকে বিভিন্ন জনের আইডি থেকে ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই ব্যপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। তবে তারা নৈতিক স্থলন ঘটিয়েছে বলে দাবী করে তাদের বহিষ্কার দাবী করেছেন স্থানীয় এলাকাবাসী।

এ বিষয়ে ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম জানান, আমাকে ফাসানো হয়েছে। এগুলা সব মিথ্যা ও ষড়যন্ত্র মুলক। এ ছাড়া নারী ইউপি সদস্য জেসমিন আক্তারকে মুঠোফোনে কল দেওয়া হলে নাম্বারটি বন্ধ থাকায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

তবে আওনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বেল্লাল হোসেন জানান, তারা আগে থেকেই এভাবে চলাচল করে। আমি ঢাকা থেকে এসে ইউএনও মহোদয়কে বিষয়টি অবগত করে বিধি মোতাবেক পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সুপারিশ করব।

এ বিষয়ে সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মুশফিকুর রহমান জানান,সংবাদ পেয়েছি। সেখানে তারাকান্দি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তদন্ত স্বাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে মুঠোফোনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তারকে একাধিকবার কল দেওয়া হলে নাম্বারটি রিসিভ না করায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।